মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশনের নতুন যুগে প্রবেশ করেছে বাংলাদেশ

আইটি ডেস্ক | ১ জুলাই ২০২১ ২১:১৩ আপডেট: ২৭ অক্টোবর ২০২১ ১৩:৩৪

ছবিঃ ইন্টারনেট

মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশনের নতুন যুগে প্রবেশ করেছে বাংলাদেশ। তবে এ সেবা গ্রহণে গ্রাহক হয়রানি কমাতে নির্দেশনা দিয়েছেন টেলি যোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। সেজন্য গতকাল থেকে শুরু হয়েছে এনইআইআর কার্যক্রম। বলা হচ্ছে, এখন থেকে মোবাইল ফোন কেনা বা উপহার পেলেও তা বাধ্যতামূলক ভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

বিটিআরসির তথ্য অনুযায়ী দেশে এখন পর্যন্ত সচল মোবাইল সেটের সংখ্যা প্রায় ১৭ কোটি। তবে সেগুলোর বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। বলা হচ্ছে দেশে ব্যবহৃত প্রায় ২৫-৩০ ভাগ মোবাইল ফোনই অবৈধ। এ ফোনগুলো দেশের বাইরে থেকে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে বিটিআরসির অনুমোদন ব্যাতিত অবৈধভাবে দেশে আনা হয়েছে। তাই মোবাইল ফোন ব্যবহারে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্টার কার্যক্রম চালু করেছে বিটিআরসি।

এ কার্যক্রমের ভার্চুয়াল উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বলা হয় নতুন মোবাইল সেট কিনে নিবন্ধিত সিম কার্ড ইনসার্ট করার মাত্রই স্বয়ংক্রিয়ভাবেই রেজিস্ট্রেশন হবে। তবে সেট টির বৈধতা না থাকলে বিটিআরসি নির্দিষ্ট সময় বেধে দিয়ে উপযুক্ত নথি চাইবে। সেক্ষেত্রে ব্যর্থ হলে ফোনটি সচল আর হবে না।

অনুষ্ঠানে আরও বলা হয়য়, ৩০ জুনের আগে কেনা সকল হ্যান্ডসেট স্বয়ংক্রিয় ভাবে রেজিস্ট্রেশন হবে কিন্তু ১ জুলাই থেকে শুধুমাত্র বৈধ উপায়ে কেনা সেটগুলোই পাবে নিবন্ধন।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top