এ সপ্তাহেই করোনার টিকা পাবে স্কুল শিক্ষার্থীরা   

সময় ট্রিবিউন | ১৩ অক্টোবর ২০২১ ১০:২৫ আপডেট: ২৬ অক্টোবর ২০২১ ০৮:৪৬

করোনাভাইরাসের টিকা- ছবি: সংগৃহীত

দেশে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী স্কুল শিক্ষার্থীদের এ সপ্তাহ থেকেই করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেয়া শুরু হবে। ঢাকা শহরের পাশাপাশি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের ২১টি সেন্টারে শিশুদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে। প্রথমে ট্রায়াল ভিত্তিতে ৫০-১০০ শিশুকে ভ্যাকসিন দিয়ে কয়েকদিন পর্যবেক্ষণ করা হবে।

গতকাল মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম।  

মহাপরিচালক জানান, সারা দেশের ২১টি জেলায় যেখানে মাইনাস ৭০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় ফাইজারের ভ্যাকসিন সংরক্ষণের সুযোগ আছে, এমন সব কেন্দ্রে চলবে স্কুল শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন প্রদান।

ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, শিশুদের ভ্যাকসিন যারা দিবে তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে, সেন্টারে ভ্যাকসিন পৌঁছানো থেকে শুরু করে প্রস্তুতির অনেক বিষয় রয়েছে। আমাদের কিছু কিছু প্রস্তুতি শেষ হয়েছে, আরো কিছু কাজ বাকী রয়েছে। আশা করছি চলতি সপ্তাহের মধ্যে আমরা শিশু-কিশোরদের টিকা দেয়া শুরু করতে পারবো। আমরা কয়েকটা জায়গা নির্বাচন করেছি, তবে এখনো নির্ধারণ করিনি কোথা থেকে শুরু করবো। কোন কেন্দ্রে কখন শুরু করব তা পরে জানানো হবে।

শিক্ষার্থীদের নিবন্ধন কীভাবে হবে জানতে চাইলে মহাপরিচালক বলেন, শিশুদের আপাতত স্কুলের মাধ্যমে নিবন্ধন করা হবে। আমরা যে স্কুলের বাচ্চাদের ভ্যাকসিন দিবো সেই স্কুল কর্তৃপক্ষ তালিকা দেবে, পরে তা সুরক্ষা ওয়েবসাইটে যুক্ত করা হবে। শিশুদের টিকাকেন্দ্র আলাদা হবে। 

প্রাথমিকভাবে যেসব জেলায় ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে সেগুলো হলো বরিশাল, ভোলা, ঝালকাঠি, চট্টগ্রাম, চাঁদপুর, কুমিল্লা, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, গাজীপুর, নরসিংদী, টাঙ্গাইল, যশোর, সাতক্ষীরা, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, রংপুর, সুনামগঞ্জ, সিলেট ও ​​হবিগঞ্জ।

এর মধ্যে চট্টগ্রামের চারটি, চাঁদপুরের দুটি, নোয়াখালীর দুটি, নরসিংদীর তিনটি, ময়মনসিংহের দুটি এবং রাজশাহীর আটটি কেন্দ্রে টিকা দেওয়া হবে।

এগুলো ছাড়াও ঢাকা উত্তর এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে আটটি কেন্দ্র থাকবে।

ভবিষ্যতে মানিকগঞ্জ, গোপালগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জসহ আরও ২৬ জেলায় ফাইজারের টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে ওসব জেলার টিকাদান সম্পৃক্তদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দিতে হবে।

এর আগে রোববার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, শিগগিরই শিশুদের কোভিডের টিকা দেওয়া শুরু হবে।

মন্ত্রী সেদিন বলেন, সুইজারল্যান্ড সফরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক এবং গ্যাভির প্রতিনিধির সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা শিশুদের টিকা দেওয়ার ব্যাপারে সায় দিয়েছেন। তারা আমাদের বলেছেন, 'আপনারা সংক্রমণ রোধে টিকা দিতে পারেন।' গ্যাভিও আমাদের ফাইজার ও মডার্নার টিকা বেশি করে দেবে বলে আশ্বস্ত করেছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, সরকারের হাতে এখন ৬০ লাখ ডোজ ফাইজারের টিকা রয়েছে। এর থেকে অর্ধেক টিকা শিশুদের দেওয়া হবে। টিকার জন্য শিশুদের নিবন্ধন হবে জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে। ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়া হবে।




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top