সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৭:০৫ অপরাহ্ন

চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি মেসি-রোনালদো

চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি মেসি-রোনালদো

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগালকে  বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে। কোয়ার্টার ফাইনালে যেতে হলে  ফ্রান্সকে হারাতে হবে আর্জেন্টিনার আর পর্তুগালকে হারাতে হবে উরুগুয়েকে।

‘ডি’ গ্রুপে আর্জেন্টিনা প্রত্যাশিতভাবে চ্যাম্পিয়ন হতে না পারায় শেষ ষোলোতেই মেসিদের খেলতে হচ্ছে ‘সি’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের বিরুদ্ধে। শনিবার রাত ৮টায় কাজানে হবে এই মহারণ। এর ফলে আর্জেন্টিনা বা ফ্রান্সের মতো টপ ফেবারিটের একটিকে কোয়ার্টার ফাইনালের আগেই বিদায় নিতে হবে। শনিবার রাত ১২টায় আরেক প্রিকোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হবে উরুগুয়ে ও পর্তুগাল। ‘বি’ গ্রুপে মেসিদের মতো সেরা হতে পারেনি রোনাল্ডোর পর্তুগিজ দল। যে কারণে উরুগুয়ের মতো পরাশক্তির বিরুদ্ধে সেরা ষোলোতেই দেখা হচ্ছে। তাইতো এ দল দু’টির একটিকেও বিদায় নিতে হবে শেষ আটের আগেই। তার মানে, কোনরকমে গ্রুপপর্বের বাধা পেরুলেও প্রিকোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায়ঘণ্টা বেজে যেতে পারে মেসি-রোনালদোর।।

রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে নবীন দল আইসল্যান্ডের সঙ্গে ড্র করে পিছিয়ে পড়া আর্জেন্টিনা দ্বিতীয় ম্যাচে হেরে প্রায় বিদায় নিয়েছিল। কিন্তু শেষ ম্যাচে সমীকরণের দেয়াল ডিঙিয়ে তারা নকআউটে এসেছে। প্রথম পর্বে আর্জেন্টিনা দলটি পুরোপুরি ছন্নছাড়া ফুটবল খেলেছে। তাদের খেলোয়াড়দের মধ্যে কোনো সমন্বয় ছিল না। কোচ সাম্পাওলি হেঁটেছেন ভুল কৌশলে। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়েছিল যে কোচের বিরুদ্ধে রীতিমতো মুখ খুলে খেলোয়াড়রা বিদ্রোহ করেছেন।  গোলরক্ষক পজিশনে আলবিসেলেস্তেদের সম্বল এখন তৃতীয় গোলরক্ষক। নড়বড়ে গোলরক্ষকের সামনে নড়বড়ে ডিফেন্স। আক্রমণভাগও প্রত্যাশা মেটাতে পারেনি। সবচেয়ে বড় কথা তাদের আত্মবিশ্বাস কাঙিক্ষত লেভেলে নেই। ফলে ধারাবাহিক জয়ে উজ্জীবিত ফ্রান্সের সামনে তারা বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে। সে চ্যালেঞ্জে নিশ্চিতভাবেই এগিয়ে থাকবে ফ্রান্স। কারণ তাদের কোচ সতর্ক কৌশলে বেস্ট ইলেভেনই নামাচ্ছেন মাঠের লড়াইয়ে।

ফ্রান্সের শক্তির জায়গাটা তাদের মিডফিল্ড ও আক্রমণভাগ। গ্রিজম্যান, এমবাপ্পে ও পগবাদের নিয়ে দ্য ব্লুজ ফ্রান্স একটি কমপ্যাক্ট টিম। এখন দ্বিতীয় রাউন্ডের গেরো পেরুতে গেলে আর্জেন্টিনাকে প্রতিটি পজিশনেই ভালো করতে হবে। ব্যক্তিনির্ভর নয়, তাদের খেলতে হবে সমন্বিতভাবে। তাদের ডিফেন্ডিং লাইন মজবুত করতে হবে। আর্জেন্টিনার আক্রমণভাগ যে বিশ্বসেরা সেটা প্রমাণের সুযোগ বিশ্বকাপের  এ মঞ্চ সেটা তাদের বুঝতে হবে। প্রতিটি সুযোগ সর্বোচ্চভাবে কাজে লাগাতে হবে। আর্জেন্টিনা বড় টিম, বড় নাম, পরিস্থিতি মোকাবিলার অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা দুটোই তাদের আছে। এ ম্যাচে দুই দলই জেতার জন্য মাঠে নামবে। আমার দৃষ্টিতে সম্ভাবনা অর্ধেক-অর্ধেক।

বিশ্বকাপে মোট দুবার দেখা হয়েছে এই দুই দলের। প্রথমবার ১৯৩০ সালে ফ্রান্সের কাছে ১-০ গোলে হেরেছিল। দ্বিতীয়বার ১৯৭৮ সালের  বিশ্বকাপে ২-১ গোলে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। রেকর্ড বুক  অনুযায়ী এই দুই দল মুখোমুখি হয়েছে মাত্র ১১ বার। ফ্রান্স জিতেছে দুইবার, ড্র হয়েছে তিনবার ও আর্জেন্টিনা জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ছয় বার। এদিক থেকেও হয়তো আত্মবিশ্বাস পেতে পারে মেসিরা।

নকআউট পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে ল্যাতিনের অন্যতম পরাশক্তি উরুগুয়ের মুখোমুখি হবে ইউরোপের অলটাইম আন্ডারডগ পর্তুগাল। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর কারণে দর্শকদের মনোযোগ থাকবে পর্তুগালের ওপর। সত্যি বলতে কি, একজন রোনালদোকে কেন্দ্র করেই এগিয়ে যাচ্ছে পর্তুগাল। সে গোল পাচ্ছে, পর্তুগাল এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু টিম পর্তুগাল এখনো কাঙিক্ষত পারফরমেন্স দেখাতে পারেনি। রোনালদোর পারফর্মেন্স এই ম্যাচে খুব দরকার হবে। পুরো টাপটা সিআরসেভেনের উপরেই থাকবে মনে হচ্ছে।

রাশিয়া বিশ্বকাপে উরুগুয়ে একটি ব্যালেন্স টিম নিয়ে খেলতে এসেছে। দলটিতে আছে বিশ্বমানের দু’জনদক্ষ ও সুযোগ সন্ধানী স্কোরার। লুইস সুয়ারেজ ও এডিসন কাভানি। তারা দু’জনই সবশেষ ম্যাচে গোল পেয়েছে। দু’জনই আত্মবিশ্বাস পেয়েছে। তাছাড়া গডিনের মতো ডিফেন্ডার আছে এই দলে। উরুগুয়ের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে তারা পজিশনাল ফুটবল খেলে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নির্ভর পর্তুগালের বিপক্ষে খেলতে নেমে উরুগুয়ে স্বাভাবিকভাবেই সিআরসেভেন সতর্ক মার্কিংয়ে রাখবে। তার উপর তারা চেষ্টা করবে পর্তুগালের বিরুদ্ধে প্লেসিং ফুটবল খেলার। সেটা কার্যকরভাবে অ্যাপ্লাই করতে পারলে বিপদে পড়বে পর্তুগাল।

এই দুই ম্যাচের উপর নজর থাকবে পুরো বিশ্বের। কারণ একদিকে মেসি আর আরেকদিকে রোনালদোরা জিতলে কোয়ার্টার ফাইনালে এ যুগের সেরা দুই খেলোয়াড়কে বিশ্বকাপে লড়াইয়ে নামতে দেখা যাবে। সেই প্রত্যাশা বহুদিনের অসংখ্য ফুটবলপ্রেমির।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

China Scholarship bd

Somoy-Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis. © All rights reserved  2018 somoytribune.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com