শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮, ০৩:০০ পূর্বাহ্ন

শিক্ষার্থীদের উপর হামলাকারীকে গ্রেপ্তারের দাবিতে জবিতে বিক্ষোভ

শিক্ষার্থীদের উপর হামলাকারীকে গ্রেপ্তারের দাবিতে জবিতে বিক্ষোভ

জবি প্রতিনিধি :
আজ সকাল ১০ ঘটিকায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাস্কর্য চত্তরে শত শত শিক্ষার্থী জবির আড়িয়াল বাসে হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে।
মানববন্ধমে উপস্থিত ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মদ , কোতোয়ালী থানার এসি বদরুল আলম এবং বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা ৬ দফা দাবি উত্থাপন করেন।

১. আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে রানা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীকে গ্রেপ্তার করতে হবে অন্যথায় ২৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মাওয়া রোডে অবস্থান ধর্মঘট হবে
২.তদন্ত করে দোষীদের বিচারে আওতায় এনে কঠোর শাস্তি ব্যবস্থা করতে হবে।
৩.শিক্ষার্থী নির্যাতন বন্ধে কার্যকরী ব্যবস্থা করতে হবে।
৪. মাওয়া রোডে শিক্ষার্থীদের বাস ভাড়া হাফ নিশ্চিত করতে হবে.
৫. মাওয়া রোডে বাসের বেপরোয়া চলাচল বন্ধ করার ব্যবস্থা করতে হবে.
৬.ঢাকা মাওয়া রোডে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা কর্মচারীর সংযত আচরণ করতে হবে.

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর নূর মোহাম্মদ, কোতোয়ালী থানা এসি বদরুল আলম দাবি গুলোর সাথে একাত্বা প্রকাশ করেন।
জবি প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মদ বলেন : হামলার উপযুক্ত বিচার হবে এবং শিক্ষার্থী যেন আর এমন আবস্থায় না হয় পরতে এর জন্য ও কঠোর ব্যস্ততা গ্রহন করা হবে।

উল্লেখ গত ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ জবি-মাওয়া রুটে আড়িয়াল বাসে সন্ত্রাসীরা হামলা এবং ছাত্রী লাঞ্চিত করা হয়, ১৫ জন জবিয়েনকে বেধরক মারধোর করে। রানা, ইমরান ও তার সন্ত্রাসী গ্রুপ ঐ রোডের প্রভু বলে দাবী করে।
এবং নিত্য মাওয়া রোডের বাস চালকের রাফ ড্রাবিং এর কারণে প্রকট জ্যাম হয়, প্রায় ওদের সাইড না দিলে ভার্সিটির বাসে ধাক্কা লাগিয়ে দেয় এবং মন্দ গালি দেয়।

আড়িয়াল বাসের এক শিক্ষার্থী ঘটানাটি এ ভাবেই বণর্না করেন-
ধলেশ্বরী ২য় সেতুতে যানযটের কারণে অপেক্ষমান ছিলআড়িয়াল বাসটি । রাস্তার একপাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হলে বিপরীত লেন দিয়ে গাড়ি চালিয়ে আসে এক নেশাগ্রস্ত চালক। ফলে যানযট ভয়াবহ অবস্থায় রূপ নেয়। ফলে আড়িয়াল বাসে অবস্থানরত ছাত্ররা যানযট ছাড়াতে গিয়ে নেশাগ্রস্ত চালককে অভিযুক্ত করলে সে এক ছাত্রের উপর চরাও হয় এবং তাকে চড় মারে। ফলে কয়েকজন ছাত্র এগিয়ে গেলে সে সকল ছাত্রকে স্থানীয় পরিচয় দিয়ে শাসায় ও অকথ্য ভাষায় ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয়কে গালিগালাজ করে এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আড়িয়াল বাস পুড়িয়ে ফেলার কথা বলে। এতেকরে সব ছাত্ররা ক্ষুব্ধ হয়ে পরলে গাড়ির ঐ মালিক পালিয়ে যায়। ছাত্ররা তার গাড়ি ও ড্রাইভারকে আটক করে। পরবর্তীতে সে মালিক তার সন্ত্রাসী গ্রুপ নিয়ে এসে ছাত্রদের উপর হামলা চালায় এবং গাড়ি করে ভাঙচুর করে।



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Somoy-Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis. © All rights reserved  2018 somoytribune.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com